মায়ের দুধের রঙ বদলে দিলো করোনা

পুষ্টিকর উপাদান নিশ্চিত করা এবং শক্তিশালী রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে তোলার জন্য শিশুকে ছয় মাস বয়স পর্যন্ত অবশ্যই মায়ের দুধ খাওয়াতে হবে। তবে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর অনেকের শরীরে বিভিন্ন ধরনের পরিবর্তন দেখা গেছে। শারীরিক এসব পরিবর্তন দৃশ্যমান হলেও মেক্সিকোর একজন নারীর সঙ্গে যা ঘটেছে, তা অকল্পনীয়ই বলা যায়। কেননা এখনও পর্যন্ত এ ধরনের পরিবর্তনের কথা শোনা যায়নি।

করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর বদলে গেছে মায়ের দুধের রঙ। যা দেখে বিশেষজ্ঞরাও অবাক হয়ে গেছেন। নির্দিষ্ট কোনও ব্যাখ্যা দিতে না পারলেও কেউ কেউ বলছেন করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করছিল শরীরের অ্যান্টিবডি। তাই মায়ের দুধের রঙের পরিবর্তন হয়ে থাকতে পারে। আবার কেউ বলছেন করোনার চিকিৎসায় ওষুধ সেবন করায় এমনটা ঘটেছে।

মেক্সিকোর এনা কার্টিজ নামের ওই নারী সোশ্যাল মিডিয়ায় সম্প্রতি একটি ছবি পোস্ট করেন। সদ্য মা হওয়া এই নারী জানিয়েছেন, তার শরীরে করোনার উপসর্গ দেখা দেয়ার তিন-চারদিন আগে থেকেই এমনটা ঘটতে থাকে। তার পোস্ট করা ছবিতে দেখা যায়, মায়ের দুধের রঙ হালকা হলুদ হয়ে গেছে। এনার দাবি, করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পরই তার শরীরে এই পরিবর্তন দেখা দিয়েছে। তবে করোনা নেগেটিভ হওয়ার পর আবার সব স্বাভাবিক হয়ে গিয়েছিল বলে দাবি করেন তিনি। অর্থাৎ তখন তার দুধের রঙ আবার স্বাভাবিক হয়ে যায়।

করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পরও তার মেয়ে দুধ পান করেছিল বলে জানান এনা। তবে বিশেষজ্ঞদের কেউ কেউ বলছেন, এতে ভয়ের কিছু নেই। কারণ মায়ের দুধ তার মেয়েকে করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সাহায্য করবে। এনা জানান, তিনি একটা সময় দুধ ফ্রিজে জমিয়ে রেখেছিলেন। পরে দুধের রঙে পরিবর্তন দেখা দেয়ায় তিনি বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নেন। তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি পোস্ট করার পর আরও অনেক মা দাবি করেন যে, তাদের শরীরেও একই ধরনের পরিবর্তন হয়েছিল।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*