আরো তিনটি ক্যাসিনোতে অভিযান, সিলগালা

রাজধানীর মতিঝিলের ফকিরেরপুল এলাকায় ইয়ংমেনস ক্লাবে অভিযান চালানোর পর আরো তিনটি ক্যাসিনোতে অভিযান চালিয়েছে র‍্যাব। এগুলো হলো বনানীর গোল্ডেন ঢাকা বাংলাদেশ ক্যাসিনো, ফকিরেরপুলের ওয়ান্ডারার্স ক্লাবের ক্যাসিনো ও গুলিস্তানে মুক্তিযোদ্ধা ক্লাবের ক্যাসিনো।বুধবার সন্ধ্যার পর থেকে ওই তিনটি ক্যাসিনোতে অভিযান শুরু করেন র‌্যাব সদস্যরা। অভিযানের নেতৃত্বে ছিলেন র‍্যাব সদর দপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম।

র‍্যাব গণমাধ্যমকে জানিয়েছে, ওয়ান্ডারার্স ক্লাবের ক্যাসিনোটির মালিক দুজন। তাদের মধ্যে স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি মোল্লা মো. আবু কাওছার। আরেকজন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলহাজ মমিনুল হক সাঈদ।

অভিযান শেষে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম বলেন, অভিযানে ক্যাসিনো পরিচালনার সঙ্গে যুক্ত কাউকে আমরা আটক করতে পারিনি। তবে ক্যাসিনোর তিনটি জুয়ার টেবিল থেকে বিপুল পরিমাণ মদ, বিয়ার ও সিগারেটসহ বিভিন্ন ধরনের নেশাজাতীয় দ্রব্য জব্দ করা হয়েছে। একইসঙ্গে জুয়ার টেবিল থেকে ১০ লাখ ২৭ হাজার ২০০ টাকা জব্দ করা হয়েছে। ২০ হাজার ৫০০ টাকার জাল নোটও পাওয়া গেছে এই ক্যাসিনোতে। কাউকে আটক করা যায়নি বলে নিয়মিত মাদক আইনে মামলা হবে।

জানতে চাইলে র‌্যাব-১-এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল সারওয়ার বিন কাশেম এনটিভি অনলাইনকে বলেন, বনানীর আহম্মেদ টাওয়ারে অবস্থিত গোল্ডেন ঢাকা বাংলাদেশ নামক ক্যাসিনোতে অভিযান চলছে। ক্যাসিনোটি সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে।

এদিকে র‌্যাব-৩-এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল শফি বুলবুল এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ওয়ান্ডারার্স ক্লাবের ক্যাসিনোতে অভিযান চালিয়েছে র‍্যাব। তবে অভিযানের খবর পেয়ে ক্যাসিনোর ভেতরে থাকা সবাই ক্লাব ছেড়ে পালিয়েছে। তাই কাউকে আটক করা যায়নি। তবে জুয়ার বোর্ড এবং মাদক ছড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে সেখানে। অভিযানের পর ক্যাসিনোটি সিলগালা করা হয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*